কর্ম নিয়ে উক্তি, বাণী, স্ট্যাটাস, ক্যাপশন, কবিতা ও আর অনেক কিছু

আসসালামু আলাইকুম আজকে আমাদের ওয়েবসাইটে আলোচনা করতে যাচ্ছি কর্ম নিয়ে কিছু উক্তি কিছু গুণী মানুষের বাণী সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনারা কর্ম নিয়ে স্ট্যাটাস ক্যাপশন বা কোন অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি করার জন্য কর্ম নিয়ে ভালো কথাগুলো আমরা এখানে আমাদের ওয়েবসাইটে সংযুক্ত করব। তাই আমাদের ওয়েবসাইটের আজকের এই আর্টিকেলে আপনারা অবশ্যই প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত থাকবেন।

কর্ম হলো একটি আত্মবিশ্বাস যা আপনাদের মধ্যে বিদ্যমান। আপনি যদি আপনার জীবনে ভালো কিছু করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ভালো কর্মের মাধ্যমে সফলতা অর্জন করতে হবে। পৃথিবীতে অনেক কাজই আছে যেগুলো খারাপ ও ভালো মাধ্যমে চলমান। কিন্তু অবশ্যই আপনাকে বেছে নিতে হবে ভালো কর্মের মাধ্যমে যেকোনো কাজ করার চেষ্টা আগ্রহ। পৃথিবীতে এরকম অনেক গুণীজন আছে যারা ভালো কর্মের মাধ্যমে এখনো পৃথিবীর মানুষের কাছে চিরন্তন জীবিত হয়ে আছে। সুতরাং অবশ্যই আপনাকে একজন ভালো মানুষ হিসাবে জীবনের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই ভালো কর্মের মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

কর্ম নিয়ে উক্তি

আমরা আপনাদের গুগলে সার্চের মাধ্যমে দেখতে পারি আপনারা অনেকেই কর্ম উক্তি নিয়ে অনুসন্ধান করে থাকেন। তাইতো আপনাদের জন্য কর্ম নিয়ে যে উক্তি লিখেছেন সে সংগ্রহ করে আমাদের ঐক্য করেছি।

উক্তি: “কেউ আপনার ক্ষতি করেছে বলে আপনি কারো ক্ষতি করতে পারবেন না। তারা যেমন করবে তুমিও সেভাবে অর্থ প্রদান করবে।” – এরিকা উইলিয়ামস

উক্তি: “লোকেরা যা করে তার জন্য অর্থ প্রদান করে, এবং আরও বেশি, তারা নিজেদেরকে যা হতে দিয়েছে তার জন্য। এবং তারা সহজভাবে এর জন্য অর্থ প্রদান করে: তারা জীবন পরিচালনা করে।” —  জেমস বাল্ডউইন

উক্তি: “লোকেরা আপনার সাথে কেমন আচরণ করে তা তাদের কর্ম; আপনি কেমন প্রতিক্রিয়া দেখান তা আপনার।” –  ওয়েইন ডায়ার

উক্তি: “আমি এই ধারণা নিয়ে বেঁচে থাকার চেষ্টা করি যে কর্ম একটি খুব বাস্তব জিনিস। তাই আমি যা ফিরে পেতে চাই তা প্রকাশ করে দিলাম।” -মেগান ফক্স

 উক্তি: “পুরুষরা তাদের পাপের জন্য শাস্তি পায় না, কিন্তু তাদের দ্বারা।” – এলবার্ট হাবার্ড

উক্তি: “আপনি যদি বিশ্বকে একটি ভাল জিনিস দেন, তবে সময়ের সাথে সাথে আপনার কর্ম ভাল হবে এবং আপনি ভাল পাবেন।” – রাসেল সিমন্স

উক্তি:  “আমি কর্মে বিশ্বাস করি। ভালো বপন করলে ভালো সংগ্রহ হয়। যখন ইতিবাচক জিনিসগুলি তৈরি করা হয়, তখন এটি ভালভাবে ফিরে আসে।” – ইয়ানিক নোয়া

 উক্তি: “কর্মের একটি স্বাভাবিক নিয়ম আছে যে প্রতিহিংসাপরায়ণ লোকেরা, যারা অন্যকে আঘাত করার জন্য তাদের পথের বাইরে চলে যায়, তারা ভেঙে পড়ে এবং একা হয়ে যায়।” – সিলভেস্টার স্ট্যালোন

উক্তি: “যখন কর্ম অবতরণ করে, তখন এটি শক্ত হয়।” – টম ফিটন

উক্তি: “কর্ম তার সময়কে মেনে চলে। আপনি সবসময় সতর্ক থাকতে হবে. কর্ম ক্ষমাশীল এবং সর্বদা প্রতিদান পায়।” – বেঞ্জামিন বায়ানি

কর্ম নিয়ে বাণী

সাধারণত যারা ভালো কর্মের মাধ্যমে আজ পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠিত। এবং কিছু মানুষ আছে যাদেরকে আবার পুরো বিশ্ব তাদের ভালো কর্মের মাধ্যমে চেনে। এইরকম কিছু গুণী ব্যক্তিত্ব মানুষের কর্ম নিয়ে কিছু বানী লিখেছেন সেগুলো আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের সংযুক্ত করেছি।

কর্মের বাণী:  “যখন আপনি সত্যিই কর্মফল বুঝতে পারবেন, তখন আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি আপনার জীবনের সবকিছুর জন্য দায়ী।” — কিয়ানু রিভস

কর্মের বাণী:“কর্ম হল ন্যায়বিচার। এটি পুরষ্কার বা শাস্তি দেয় না, কারণ আমরা যা পাই তা আমাদের উপার্জন করতে হবে।” — মেরি টি. ব্রাউন

কর্মের বাণী:  “আমি কর্মে বিশ্বাস করি, এবং আমি বিশ্বাস করি আপনি যদি সকলের কাছে ইতিবাচক স্পন্দন প্রকাশ করেন, তবেই আপনি ফিরে পেতে চলেছেন।” — কেশা

কর্মের বাণী:“এটা তোমার কর্মফল। এখন বুঝতে পারছেন না, পরে বুঝবেন।” — এইচ রেভেন রোজ

কর্মের বাণী:  “আমি প্রতিশোধ নিতে চাই, কিন্তু আমি আমার কর্মকে নষ্ট করতে চাই না।” — সুসান কোলাসান্টি

কর্মের বাণী:“কর্মফলের উপর আপনার বিশ্বাস করা বা না করা তার অস্তিত্বের উপর কোন প্রভাব ফেলে না, আপনার উপর এর পরিণতির উপরও কোন প্রভাব ফেলে না। ঠিক যেমন সাগরে বিশ্বাস করতে অস্বীকার করলেও আপনাকে ডুবে যেতে বাধা দেবে না।” — এফ পল উইলসন

কর্মের বাণী:“কর্মের অর্থ উদ্দেশ্য। কর্মের পিছনে অভিপ্রায়ই গুরুত্বপূর্ণ।” – ভগবদ্গীতা

কর্মের বাণী: “মাধ্যাকর্ষণ শক্তির মতো, কর্মফল এতটাই মৌলিক যে আমরা প্রায়শই এটি লক্ষ্যও করি না।” – সাকিয়ং মিফাম

কর্মের বাণী: “আপনি কাজ করার আগে, আপনার স্বাধীনতা আছে, কিন্তু আপনি কাজ করার পরে, আপনি এটি চান বা না চান সেই কর্মের প্রভাব আপনাকে অনুসরণ করবে। এটাই কর্মের নিয়ম।” – পরমহংস যোগানন্দ

কর্মের বাণী: “কর্ম, যখন সঠিকভাবে বোঝা যায়, তখন কেবলমাত্র যান্ত্রিকতা যার মাধ্যমে চেতনা প্রকাশ পায়।” — দীপক চোপড়া

কর্ম নিয়ে স্ট্যাটাস

আন্তর্জাতিক কিংবা কোন মানুষের ভালো কর্মের সফলতা দেখা গেলে। ওই মানুষটিকে আরো ভালো কর্মের উৎসাহিত করার জন্য আমরা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া কর্ম নিয়ে স্ট্যাটাস দিয়ে থাকি। এজন্য আপনাদের জন্য আমরা কিছু ভালো কর্মের স্ট্যাটাস নিয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে হাজির হয়েছি।

কর্মের স্ট্যাটাস: “প্রিয় কর্মা, আমি এখনই তোমাকে সত্যিই ঘৃণা করি, তুমি তোমার কথা বলেছ।” — অটিলি ওয়েবার

কর্মের স্ট্যাটাস: “কর্মফল, ভাল বা খারাপ, অবিলম্বে প্রকাশ নাও হতে পারে। একই জীবদ্দশায় বা ভবিষ্যতের জীবনে ঘটতে পারে। এমনকি আমরা একই সময়ে ইতিবাচক এবং নেতিবাচক উভয় প্রতিক্রিয়া পেতে পারি।” – বেঞ্জাওয়ান পুমসান

কর্মের স্ট্যাটাস: “শুধু প্রায়শই সঠিক এবং ভুল নয়, তবে যা ঘটছে তা চারপাশে আসে, কর্ম বিদ্যমান।” – ডাঃ কেন বেকার

কর্মের স্ট্যাটাস: “কোনও দিন লোকেরা আমাকে জিজ্ঞাসা করবে আমার সাফল্যের চাবিকাঠি কী…এবং আমি কেবল বলব, “ভাল কর্ম।” — কে. ক্রুমলি

. কর্মের স্ট্যাটাস: “এমনকি সুযোগের মিলনও কর্মফলের ফল… জীবনের জিনিসগুলি আমাদের পূর্ববর্তী জীবনের দ্বারা ভাগ্য হয়। এমনকি ছোট ঘটনাগুলিতেও কাকতালীয় বলে কিছু নেই।” – হারুকি মুরাকামি

কর্মের স্ট্যাটাস:  “কর্ম, সহজভাবে বলতে গেলে, একটি কর্মের জন্য একটি ক্রিয়া, ভাল বা খারাপ।” — স্টিফেন রিচার্ডস

 কর্মের স্ট্যাটাস: “আমি ভাগ্যে বিশ্বাস করি এবং আমি বিশ্বাস করি যে জিনিসগুলি একটি কারণে ঘটে তবে আমি মনে করি না যে একটি উচ্চ ক্ষমতা আছে, অগত্যা। যদিও আমি কর্মে খুব বিশ্বাস করি।” – অ্যামি ওয়াইনহাউস

 কর্মের স্ট্যাটাস: “কেউ তাকে উল্লেখ করা উচিত ছিল যে কর্ম একটি বিষাক্ত জাদুকরী ছিল।” — কোর্টনি কোল

কর্মের স্ট্যাটাস: “আপনার মনের অবস্থা এলোমেলোভাবে ঘটে না। তারা কম্পনশীল এবং কর্মিক নিদর্শনগুলির কারণে ঘটে।” – ফ্রেডরিক লেনজ

কর্মের স্ট্যাটাস: কর্ম দুই দিকে চলে। আমরা যদি সৎভাবে কাজ করি, তাহলে আমরা যে বীজ রোপণ করি তাতে সুখ আসবে। আমরা যদি অসৎ কাজ করি, তাহলে ফল ভোগ করবে।” – সাকিয়ং মিফাম

কর্মের স্ট্যাটাস:  “যাদের কোন সহানুভূতি নেই তাদের প্রতিও কি আপনি সহানুভূতিশীল হতে পারেন? যদি তাই হয়, আপনি তৈরি করতে পারেন এমন কোন সূক্ষ্ম কর্ম নেই।” – গ্যারি জুকাভ

কর্মের স্ট্যাটাস: “কখনও কাউকে ধমক দিবেন না কারণ কর্মে সবার ঠিকানা এবং মাতার** রাজা স্ট্যাম্প রয়েছে!” – লেডি গাগা

কর্ম নিয়ে ক্যাপশন

অনেকেই আছেন যারা সমাজে অনেক ভালো কর্মের ফটোগ্রাফি কিংবা ছবি তুলে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে থাকেন। অথবা আপনি কোন একটি ভাল কর্ম করে সেই কর্মের ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিলে আপনার অবশ্যই ক্যাপশন এর প্রয়োজন হয়। এজন্য আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে কর্মের কিছু ক্যাপশন সংযুক্ত করেছি আশা করি আপনাদের কাজে দিবে।

কর্মের ক্যাপশন: “আমরা যাই করি না কেন, আমাদের কর্মফল আমাদের উপর কোন ধারণ করে না।” – বোধিধর্ম

কর্মের ক্যাপশন:  “আমি কর্মে একজন সত্যিকারের বিশ্বাসী। আপনি যা দেবেন তা পাবেন, তা খারাপ হোক বা ভাল।” – স্যান্ড্রা বুলক

কর্মের ক্যাপশন: “বিনা কষ্টে ও শ্রমে কেনা যায় এমন কিছুই নেই যা সত্যিকার দামি। – এডিসন”

কর্মের ক্যাপশন: “নিজেই নিজের মনিব হয়ে কর্ম করে, কেবলমাত্র সেই ধরনের কর্মই তাকে দেয় কর্মের সকল ফসলের ওপর স্বত্বাধিকার। – দ্বাদশ পােপ পায়াস”

কর্মের ক্যাপশন: আমাদের জীবন আমাদের ইচ্ছার উপর নয়, আমাদের কর্মের উপর দণ্ডায়মান। – পিথাগোরা”

কর্মের ক্যাপশন: “জন্ম হোক যথা তথা কর্ম হোক ভালো। – আব্রাহাম লিঙ্কন”

কর্মের ক্যাপশন: “আজ যে রাজা, আগামীকাল হয়তাে তাকে সিংহাসন ত্যাগ করতে হবে, কিন্তু আজকের কর্মই তাকে মৃত্যুঞ্জয় করে রাখতে পারে। – ফিলিপ সিডনি”

কর্মের ক্যাপশন: “দিন ছােট কিন্তু মানুষের কর্ম ছােট নয়। – স্যামুয়েল রাওল্যান্ড”

কর্মের ক্যাপশন: “অধীনস্থ কর্মচারীর গুণের বিচার হয় কর্তৃকারকে, কর্মকারকে নয়। – অচিন্তকুমার সেনগুপ্ত”

কর্মের ক্যাপশন: “মানুষ তার কর্মের সন্তান। – সিসেরাে”

কর্মের ক্যাপশন: “কর্ম জীবনকে দেয় স্বাধুতা। – আমিয়েল”

কর্মের ক্যাপশন: “কর্মউজ্জ্বল দিনগুলি প্রকৃতপক্ষে সােনালি দিন। – মিল্টন”

কর্মের আরো কিছু কথা:

অনেকেই আছেন যারা কর্ম নিয়ে কিছু কথা লিখে গেছেন এসব কথাগুলো আমরা স্মরণ করে যে কোন কাজে করতে মোটিভেশন মূলক মানসিকতার সৃষ্টি হয়। অবশ্যই এই কর্মে নিয়ে কিছু কথাগুলো আপনারা পড়বেন।

  • কর্মই বিরক্তি, পাপ ও দরিদ্রতা এই তিনটি অমঙ্গল দূরীভূত করে।
  • “কর্ম থেকে কর্তৃত্বকে যতই দূরে পাঠানাে যাবে, কর্ম ততই মজুরির বােঝা হয়ে মানুষকে চেপে মারবে।
  • “আমি আমার ভাগ্যকে বিশ্বাস করি, কর্মকে বিশ্বাস করি। মানুষকে শুধু মানুষ হিসাবে বিবেচনা করাে না, তার কর্ম দ্বারা বিচার করাে।
  • “আমাকে কর্মব্যস্ত হতে দাও, ব্যস্ত রসনা দিও না।
  • “কর্মই মানুষকে উদার, সুন্দর এবং বিবেচক করে তােলে।
  • “যখন পূণ্যের বল মানুষের ভিতর কম পড়ে, তখন তাহাদের পতন হয়। কর্ম, সাধনা, পূণ্য মানুষকে বড় করে। শুধু প্রার্থনার আঁখিজলে নহে, খোদা শুধু আঁখি জলে ভােলেন না।
  • “কর্মব্যস্ত লােকের জীবনে স্বপ্ন বলে কিছু থাকে না।
  • “কর্ম মানব জীবনে অনিবার্য, মানব কল্যাণের প্রকৃত উৎস।
  • “মানুষ কর্ম বিশেষ বড় নহে, মনুষ্যত্ব রক্ষা করিয়া যে কর্মই করা যায় তাহাতে অপমান নাই।
  • “কর্ম ও উপাসনার মধ্যে কোন সম্পর্ক নাই— এ কথা যাহারা বলে, তাহারা সমাজকে অধঃপতিত করে। কর্মকে উপাসনার মতো শুদ্ধ করিবার জন্য যে জীবন ব্যাপিয়া মানুষের ভিতরে বাহিরে সংগ্রাম চলিবে, তাহাই মনুষ্যত্ব ও ধর্ম।
  • “সুকর্ম কখনাে হারিয়ে যায় না।
  • “তােমার কর্মই তােমাকে মহিমান্বিত করবে।
  • “আমারা আমাদের কর্মকে যতটা নির্ধারণ করি, আমাদের কর্মও ঠিক ততটাই আমাদের নির্ধারণ করে।
  • “কর্মদক্ষতাই মানুষের সর্বাপেক্ষা বড় বন্ধু।
  • “কর্মদক্ষ মানুষের গৃহে ক্ষুধা উকি মারে কিন্তু ঢুকতে সাহস পায় না।

কর্ম নিয়ে শুভেচ্ছা

কোন মানুষ যদি ভালো কর্মের দ্বারা আপনাদের চারপাশে দেখতে পান। তাহলে অবশ্যই তাকে আপনারা সাধুবাদ জানাবেন। এবং শুভেচ্ছা জানাবেন, তাইতো আপনাদের জন্য আমরা কর্ম নিয়ে শুভেচ্ছা মূলক কথাগুলো এখানেই প্রকাশ করছি।

  • কর্মতৎপরতা, মনের পবিত্রতা ও উত্তম ব্যবহারের দ্বারা পৃথিবীকে স্বর্গের সমান করে তােলা যায়।
  • “যে কর্মের দ্বারা এই আত্মভাবের বিকাশ হয় তাহাই কর্ম।
  • “যে জীবন কামনা করে সে অবশ্যই সৎকর্মের পথে চলবে। “
  • “ধন দৌলত ফিরিয়া আসে এবং একটি অর্থাৎ শুধু কর্মই সঙ্গে থাকে।
  • “অনেক ক্ষেত্রে মানুষ ভাবে এক, হয় আর এক। এর জন্য তার ভাগ্য দায়ী নয়, দায়ী তার কর্মফল।
  • “কর্মফল প্রত্যেককেই ভােগ করতে হবে।

খারাপ কর্মের উক্তি

খারাপ কর্ম হল একটি ঘৃণা যা একজন মানুষকে তার জীবন থেকে সঠিক পথটি ভুলে একটি ভুল মানসিকতার সৃষ্টি করে। অবশ্যই এটি খারাপ তাই আমরা ভালো কর্মের মাধ্যমেই জীবনকে রঙিন করবো।

  • খারাপ কর্ম হল আধ্যাত্মিক ঘৃণা যা একজনের অতীতের সমস্ত জীবন এবং এই জীবন থেকে নিজের ভুলের জন্য জমা হয়েছে। …
  • আমার একটা নিয়ম ছিল যে সূর্য ওঠার আগেই আমাকে ঘুমাতে হবে। …
  • আমি কর্মে একজন সত্যিকারের বিশ্বাসী।

কর্ম নিয়ে কবিতা

নিচে আমরা কিছু কর্ম নিয়ে কবিতা প্রকাশ করছি আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে।

শক্তি মায়ের ভৃত্য মোরা- নিত্য খাটি নিত্য খাই,

শক্ত বাহু, শক্ত চরণ, চিত্তে সাহস সর্বদাই।

ক্ষুদ্র হউক, তুচ্ছ হউক, সর্ব সরম-শঙ্কাহীন—

কর্ম মোদের ধর্ম বলি কর্ম করি রাত্রি দিন।

চৌদ্দ পুরুষ নিঃস্ব মোদের – বিন্দু তাহে লজ্জা নাই,

কর্ম মোদের রক্ষা করে অর্ঘ্য সঁপি কর্মে তাই।

সাধ্য যেমন – শক্তি যেমন – তেমনি অটল চেষ্টাতে–

দুঃখে-সুখে হাস্যমুখে কর্ম করি নিষ্ঠাতে।

কর্মে ক্ষুধার অন্ন যোগায়, কর্মে দেহে স্বাস্থ্য পাই;

দুর্ভাবনায় শান্তি আনে — নির্ভাবনায় নিদ্রা যাই।

তুচ্ছ পরচর্চাগ্লানি— মন্দ ভালো— কোন্ টা কে—

নিন্দা হতে মুক্তি দিয়া হাল্কা রেখে মনটাকে।

পৃথ্বি-মাতার পুত্র মোরা, মৃত্তিকা তার শয্যা তাই;

পুষ্পে-তৃণে বাসটি ছাওয়া, দীপ্তি-হাওয়া ভগ্নী-ভাই।

তৃপ্তি তাঁরি শস্যে-জলে ক্ষুত্ পিপাসা দুঃসহ।

মুক্ত মাঠে যুক্ত করে বন্দি তাঁরেই প্রত্যহ।

ক্ষুদ্র নহি – তুচ্ছ নহি – ব্যর্থ মোরা নই কভু।

অর্থ মোদের দাস্য করে – অর্থ মোদের নয় প্রভু।

স্বর্ণ বল, রৌপ্য বল, বিত্তে করি জন্মদান,

চিত্ত তবু রিক্ত মোদের নিত্য রহে শক্তিমান।

কীর্তি মোদের মৃত্তিকাতে প্রত্যহ রয় মুদ্রিত,

শুণ্য’ পরে নিত্য হের স্তোত্র মোদের উদ্গীত।

সিন্ধুবারি পণ্য বহি’ ধন্য করে তৃপ্তিতে,

বহ্নি’ মোদের রুদ্র প্রতাপ ব্যক্ত করে দীপ্তিতে।

বিশ্ব জুড়ি’ সৃষ্টি মোদের, হস্ত মোদের বিশ্বময়,

কাণ্ড মোদের, সর্বঘটে – কোন্ খানে তা দৃষ্য নয়?

বিশ্বনাথের যজ্ঞশালে কর্মযোগের অন্ত নাই,

কর্ম সে যে ধর্ম মোদের, — কর্ম চাহি — কর্ম চাই।

পরিশেষে বলা যায় আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের সর্বদাই চেষ্টা করি আপনাদের নতুনত্ব এবং সাম্প্রতিক বিষয়গুলো জানাতে। তাই কোন কিছু আপনার জানার থাকলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করবেন ধন্যবাদ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button